মূলধন কি,ইসলামী দৃষ্টিভঙ্গিতে মূলধন এবং উৎপাদন কাজে এর গুরুত্ব বর্ণনা কর।

What is capital

ভূমিকাঃ

মূলধন কি ,মূলধন হলো উৎপাদনের অন্যতম উপাদান । সাধারণ মূলধন বলতে টাকা – পয়সাকে বুঝায় , কিন্তু অর্থনীতিতে মূলধন বলতে মানুষের শ্রমে উৎপন্ন সম্পদের যে অংশ সরাসরি ভােগের জন্য ব্যবহৃত না হয়ে পুনরায় উৎপাদন কাজে লাগে তাকে মূলধন বলে

মূলধনের সংজ্ঞাঃ

♦ এ্যাডাম স্মিথ বলেন –
যে সম্পদ হতে কিছু আয় করা হয় তাই মূলধন ।
♦ অধ্যাপক মাশীলের মতে ,
মূলধন একটি তহবিল এবং আয় এর প্রবাহমান ধারা।
♦ অর্থনীতিবিদ বম ওয়ার্ক বলেন –
Capital is the produced means of production . মূলধন হলাে উৎপাদনের উৎপাদিত উপাদান।
♦ অর্থনীতিবিদ চ্যাপম্যান বলেন –
Capital is wealth which yields an income or in the production of an income . “ যে সম্পদ কোনাে আয় সৃষ্টি করে অথবা উপার্জনে সহায়তা করে তাকে মূলধন বলে ।
الرأسمالية ، وقد سمي النّموّل في الاصطلاح نظام اقتصادي تكون فيه وسائل الإنتاج بشكل عام مملوكة ملكية خاصة أو مملوكة لشركات ، وحيث يكون التوزيع ، والإنتاج وتحديد الأسعار محكوم بالسوق الحر والعرض والطلب ، ويحق للملاك آن يحتفظوا بالأرباح أو يعيدو استثمارها
♦ الرأسمالية نظام اقتصادي ذو فلسفة اجتماعية وسيامية تقوم الفردية والمحافظة عليها
،
♦ অধ্যাপক কে . এস , মিল , বলেন –
মূলধন হলাে ভবিষ্যৎ সম্পদ উৎপাদনের জন্য অতীত শ্রমের সংগৃহীত উপাদান ।
♦ আব্দুল মান্নান চৌধুরী বলেন –
মূলধন বলতে কেবল নগত অর্থ বা আর্থিক সম্পদকে বুঝানাে হয়ে থাকে ।
♦ In finance and accounting , Capital generally refers to financial wealth especially that used to start or maintain a business .
♦ In classical economics , Capital is one of the three factors of production , the others are land and labor .

ইসলামী অর্থনীতিতে মূলধনঃ

প্রাকৃতিক উপাদানের সাথে মানুষের শ্রম , মেধা ও যােগ্যতা যােগ হলে সম্পদ উৎপাদন সম্ভব হতে পারে । পরিশ্রমলব্ধ উপার্জিত সম্পদ আরাে অধিক লাভের আশায় অর্থকরী কাজে নিয়ােজিত করাকে মূলধন বলে । এজন্য ইসলাম সম্পদ সঞ্চিত করে রাখতে স্পষ্টভাবে নিষেধ করেছে । কারাে অর্থে সঞ্চয় গড়ে উঠলেই ইসলাম তাকে ব্যক্তিগত ও সামাজিক কল্যাণের স্বার্থে ব্যয় ও মূলধন হিসেবে ব্যবহার করতে উৎসাহিত করেছে ।
♦ আল্লাহ তায়ালা বলেন –
وَالَّذِينَ يُحَرُون الذهب والمَضة ولا يُنْفقُونها في سبيل اللهِ وَبَسَرَهم بعذاب
আর যারা স্বর্ণ ও রূপা জমা করে রাখে এবং তা ব্যয় করে না আল্লাহর পথে , তাদের কঠোর আযাবের সুসংবাদ শুনিয়ে দিন । )
♦ তিনি আরাে বলেন –
وَ لِكُل هُمَزة أَرَة ، الذِي جمع مالا وعدّدّه
(প্রত্যেক পশ্চাতে ও সম্মুখে পরনিন্দাকারীর দূর্ভোগ , যে অর্থ সঞ্চিত করে ও গণনা করে । )

উৎপাদনে মূলধনের গুরুত্বঃ

সকল ধরণের অর্থনৈতিক ব্যবস্থাতেই উৎপাদনের গুরুত্ব অপরিসীম । প্রকৃত প্রদত্ত সকল সম্পদ সরাসরি ভােগ বা ব্যবহার করা যায় না । তাই এগুলােকে ব্যবহারের উপযােগী করে তােলার জন্য আকার , আকৃতি ও রূপ পরিবর্তন করা হয় । একে উৎপাদন বলে । উৎপাদনের গতি ও বৈচিত্র্য বিশ্বসভ্যতাকে দিয়েছে প্রগতি । একটি কারবার প্রতিষ্ঠানের উন্নতিতে বা কোন দেশের অর্থনীতিতে উৎপাদনের গুরুত্ব বা ভূমিকা অপরিসীম ।

উৎপাদন বৃদ্ধিঃ উৎপাদন কাজে মূলধন ব্যবহার করলে শ্রমিকের কর্মদক্ষতা তথা উৎপাদন ক্ষমতা । বৃদ্ধি পায় । ফলে মূলধন যত বেশি হয় উৎপাদন তত বেশি বৃদ্ধি পায়।

যন্ত্রপাতির যােগানঃ উৎপাদন কাজে যন্ত্রপাতির দরকার হয় । আর্থিক মূলধনের সাহায্যে উৎপাদনের প্রয়ােজনীয় যন্ত্রপাতি ক্রয় করা যায় । সুতরাং মূলধন উৎপাদন কাজে প্রয়ােজনীয় যন্ত্রপাতির যােগান দেয় ।

শ্রমের দক্ষতা বৃদ্ধিঃ উৎপাদন কাজে উন্নত যন্ত্রপাতি ব্যবহারের ফলে শ্রমিকদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি পায় । ফলে কম সময়ে অধিক পরিমান দ্রব্য সামগ্রী উৎপাদন করা যায় । কাজেই মূলধন শ্রমিকদের দক্ষতা বৃদ্ধি করে।

কর্মসংস্থান বৃদ্ধিঃ মূলধন ব্যবহারের ফলে নতুন শিল্প – কারখানা গড়ে উঠে । ফলে অতিরিক্ত শ্রমিকের চাহিদা সৃষ্টি হয় এবং কর্মসংস্থান বৃদ্ধি পায় ।

অর্থনৈতিক উন্নয়ণঃ মূলধন বিনিয়ােগ সম্পদের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করে এবং জাতীয় উৎপাদন বৃদ্ধি পায় । ফলে দ্রুত অর্থনৈতিক উন্নতি লাভ সম্ভব হয় ।

বৃহদায়তন শিল্পঃ বর্তমান বিশ্বে ব্যাপক শিল্পায়ন হচ্ছে । আর শিল্পায়ন বলতে বুঝায় বৃহদায়তন শিল্পের প্রসার । কিন্তু মূলধন ছাড়া বৃহদায়তন শিল্প প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব নয় ।

মূলধন উৎপাদনশীলঃ মূলধন উৎপাদন কাজে প্রত্যক্ষ কাজে সহায়তা করে । অন্যান্য উপকরণের সাথে মূলধনের প্রয়ােগ ঘটলে উৎপাদনের হার বেড়ে যাবে ।

মূলধন সঞ্চয়ের সৃষ্টিঃ সঞ্চয় থেকে মূলধনের সৃষ্টি । মানুষ তার আয়ের একাংশ ভােগে ব্যয় করে এবং অবশিষ্টাংশ সঞ্চয় করে । আর এ সঞ্চয় উৎপাদন কাজে নিয়ােগ করলে মূলধনে পরিণত হয় । অতএব মূলধন সঞ্চয়ের উপর নির্ভরশীল ।

মূলধন ভবিষ্যৎ আয়ের উৎসঃ মূলধন ভবিষ্যৎ আয়ের পথ সৃষ্টি করে । এর ফলে উৎপাদনের পরিমান বৃদ্ধি পায় এবং ভবিষ্যৎ উৎপাদন প্রতিষ্ঠানের জন্য অধিক আয়ের পথ সৃষ্টি করে ।

জীবনযাত্রার মানােন্নয়নঃ মূলধন ব্যবসায়ী শ্রেণীর অধিক মুনাফা অর্জনে ভূমিকা রাখে এবং তাদের . জীবনযাত্রার মানােন্নয়নে সহায়তা করে । উৎপাদন ক্ষেত্রে মূলধন ব্যবহারের ফলে শ্রমিকদের মাথাপিছু আয় , উৎপাদন , মুজুরি ও ভােগের পরিমান বৃদ্ধি পায় । যার ফলে তাদের জীবনযাত্রার মানােন্নয়ন হয় ।

সম্পদের সদ্বব্যবহারঃ মূলধন ব্যতীত কোনাে সম্পদের সদ্বব্যবহার চিন্তা করা যায় না । বিশেষ করে প্রাকৃতিক সম্পদের সদ্বব্যবহারের কোনাে নিশ্চয়তা নেই । যেমন – কৃষি , বনজ সম্পদ , খনিজ সম্পদ প্রভৃতির সঠিক ব্যবহার করতে হলে বিপুল পরিমান মূলধন প্রয়ােজন।
বহুমুখী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন ও বহুমুখী পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ইসলামী অর্থব্যবস্থায় মূলধনের গুরুত্ব অপরিসীম । অর্থনৈতিক অগ্রগতি ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে বহুমুখী পরিকল্পনা জরুরী ।

সমাপনীঃ

উৎপাদনের চারটি মৌলিক উপাদানের মধ্যে মূলধন অন্যতম একটি উপাদান । উৎপাদন ব্যবস্থা । অনেকাংশে মূলধনের উপর নির্ভর করে । উৎপাদনের জন্য যে কোনাে প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে হলে প্রথমেই মূলধনের প্রয়ােজন পড়ে । মূলধন ব্যতীত কোনাে উৎপাদন কর্মকান্ড চলতে পারে না ।

মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি মূলধন কি