সুনানে আবু দাউদের বৈশিষ্ট্য সমূহ আলোচনা

Abu Daud

উপস্থাপনাঃ

ইমাম আবু দাউদ (র)এর অসামান্য অবদান বিশ্ব বিখ্যাত হাদীস গ্রন্থ সুনানে আবু দাউদ। তিনি ৫ লক্ষ হাদিস থেকে যাচাই-বাছাই করে ৪৮০০ টি হাদিসের সমন্বয়ে আবু দাউদ শরীফ সংকলন করেন। তাই হাদিসের গ্রন্থটি বিশুদ্ধতা নিরিখে সর্বজনীন মর্যাদা অর্জন করেছে। ما ذكرت في كتابي حديثا يستمع الناس و على التركي.
বস্তুত এ গ্রন্থের বৈশিষ্ট্য বলেই বিশুদ্ধতার প্রামাণ্য দলিল।নিম্নে উল্লেখযোগ্য সুনানু আবু দাউদের বৈশিষ্ট্য আলোচনা করা হলো।

সুনানে আবু দাউদের বৈশিষ্ট্য সমূহঃ

সুনানে আবু দাউদ এর উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য সমূহ আলোচনা করা হলো-
সুনানগ্রন্থ শিক্ষার অন্যতম গ্রন্থ ৷ সুনানে আবু দাউদ। আর এ হাদিস গ্রন্থ সম্পর্কে শরীয়তের বিধি-বিধান এবং ব্যবহারিক জীবনের প্রয়োজনীয় নিয়ম নীতি ও আদর্শ সংবলিত হাদিস সমুহের সন্নিবেশ হয়েছে।ফিকাহ কিতাবের ন্যায় আধ্যয় ও পরিচ্ছেদে বিন্যস্ত হয়েছে।

অত্যাধিক যাচাই বাছাইকরণঃ

ইমাম আবু দাউদ পাচ লক্ষ হাদিস থেকে যাচাই-বাছাই করে মাত্র ৪৮০০ সহিহ হাদিসের মাধ্যমে এই গ্রন্থ সংকলন করেন। এ প্রসঙ্গে ইমাম আবু দাউদ নিজেই বলেন-كتبت عن رسول الله صلى الله عليه وسلم خمس مائة ألف الف في حديث انتخبت منها ماضمته هذا الكتاب.
অর্থাৎ আমি রাসূল এর পাচঁ লক্ষ হাদীস লিপিবদ্ধ করেছিলাম। তার মধ্যে যাচাই-বাছাই করে মনোনীত হাদিস এ গ্রন্থে সন্নিবেশ করেছি।

দলিল উপস্থাপনাঃ

সুনানে আবু দাউদ এর মাসয়ালা বর্ণনার ক্ষেত্রে ইমামগণের মতামতের আলোকে পেশকৃত দলিল উপস্থাপন করা হয়েছে। ফলে তার মানগত ভিত্তি সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সুনানে আবু দাউদ সম্পর্কে ফিকাহবীদগমের মন্তব্য- انما تكفل مجتهدا بعد كتاب الله تعالى.
অর্থাৎ ১ জন মুজতাহিদের পক্ষে ফিকাহের মাসআলা বের করার জন্য আল্লাহর কিতাব কুরআনের পরেই সুনানে আবু দাউদ ই যথেষ্ট।

সুলাসিয়াতের সন্নিবেশঃ

সুনানে আবু দাউদ(র) সাহাবীর স্তর থেকে ইমাম আবু দাউদ পর্যন্ত তিন রাবী বিশিষ্ট অনেক সুলাসিয়াতের হাদিস স্থান পেয়েছে। যা এর মর্যাদা কে কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে।

শিরোনাম স্থাপনঃ

ইমাম আবু দাউদ (র) তার হাদিস গ্রন্থে সন্নিবেশিত হাদীসসমূহ ভিন্ন ভিন্ন শিরোনামে উপস্থাপন করেছেন।

মন্তব্য পেশঃ

বর্ণিত হাদিস সম্পর্কে মন্তব্য পেশ করা সুনানে আবু দাউদ এর অন্যতম বৈশিষ্ট্য। কোন হাদীসের সনদ ও মতনে আপত্তিকর কিছু দেখলেই ইমাম আবু দাঊদ (র) قال ابو داود বলে নিজের মন্তব্য পেশ করেছেন।

হাদিসের সর্বজনগ্রাহ্য সংকলনঃ

বিপুল গ্রহণযোগ্যতার কারণেই সুনানে আবু দাউদ সর্বজন গ্রাহ্য সংকলনের মর্যাদা অর্জন করেছে। এ সম্পর্কে স্বয়ং ইমাম আবু দাউদ বলেন- ما ذكرت في كتاب حديث من استمع الناس على تركيا
অর্থাৎ জনগণ কর্তৃক সর্বসম্মতভাবে পরিত্যক্ত কোন হাদিসই আমি এতে উদ্বৃত্ত করিনি।

রেওয়ায়াতে বিশেষ শব্দের প্রাধান্যঃ

সুনানে আবু দাউদে হাদীস সমূহে বর্ণনার ক্ষেত্রে ব্যতিক্রমধর্মী حدثناعنعنه পদ্ধতিদ্বয় প্রাধান্য পেয়েছে।

সিহাহ সিত্তার অন্যতম গ্রন্থঃ

সুনানে আবু দাউদ সিহাহ সিত্তার অন্যতম গ্রন্থ। এ প্রসঙ্গে হাফেজ আবু জাফর ইবনে জুবায়ের গারনাতী বলেন ফিকাহ সম্পর্কিত হাদীসসমূহ সামগ্রিক ও সবিস্তরে সংকলন হওয়ার কারণে সুনানে আবু দাউদ এর যে বিশেষত্ব আছে তার সিহাহ সিত্তার অপর কোন গ্রন্থ নেই।

ইসলামের লালনতন্ত্রঃ

সুনানে আবু দাউদ এর প্রধান্য বর্ণনা করতে গিয়ে মুহাদ্দিস আল্লামা জাকারিয়া বলেন- كتاب الله عز وجل له اصلا الاسلامي الكتاب والسنه لابي داود عهد الاسلام.
অর্থাৎ ইসলামের মূলমন্ত্র হলো পরাক্রমশালী মহান আল্লাহর কিতাব। আর ইসলামের লালনতত্ত্ব হলো সুনানে আবু দাউদ।

আহকাম সম্পর্কিত হাদিসঃ

সুনানে আবু দাউদ শরীফের অপর আরেকটি বৈশিষ্ট্য হলো এতে ঈমান ও আহকামের হাদিস সংকলন হয়েছে।

জয়ীফ ও অজ্ঞাতনামা রাবণের বর্ণনাঃ

ইমাম আবু দাউদ প্রকৃত সহিহ হাদিসের সমর্থন পেলে জয়ীফ ও অজ্ঞাতনামা রাবীগনের বর্ণনাও গ্রহণ করেছেন।

মুহাদ্দিসগণ এর নিকট সমধিক গ্রহণযোগ্যঃ

গ্রন্থ সংকলন করে ইমাম আবু দাউদ ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বলের নিকট নিয়ে যান। ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বল এটাকে খুবই পছন্দ করেন এবং একটি উত্তম হাদিসগ্রন্থ বলে প্রশংসা করেন। মূলত তৎকালীন মানুশষের নিকট এই কিতাব একটি অমূল্য সম্পদ হিসেবে পরিগণিত হয়েছিল।

উপসংহারঃ

হাদীস সংকলন গ্রন্থ বিশেষ করে সিয়াহ সিত্তার মধ্যে সুনানে আবু দাউদ এর অবস্থান অতি ঊর্ধ্বে। এটি হাদীস শাস্ত্রের উজ্জ্বল আলোকবর্তিকা হিসেবে সারা বিশ্বে সমাদৃত। তাঁর কারণেই গ্রন্থটি আজোও শ্রেষ্ঠত্বের আসনে সমাসীন।

গ্রন্থ সংকলন করে ইমাম আবু দাউদ ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বলের নিকট নিয়ে যান। ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বল এটাকে খুবই পছন্দ করেন এবং একটি উত্তম হাদিসগ্রন্থ বলে প্রশংসা করেন। মূলত তৎকালীন মানুশষের নিকট এই কিতাব একটি অমূল্য সম্পদ হিসেবে পরিগণিত হয়েছিল। গ্রন্থ সংকলন করে ইমাম আবু দাউদ ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বলের নিকট নিয়ে যান। ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বল এটাকে খুবই পছন্দ করেন এবং একটি উত্তম হাদিসগ্রন্থ বলে প্রশংসা করেন। মূলত তৎকালীন মানুশষের নিকট এই কিতাব একটি অমূল্য সম্পদ হিসেবে পরিগণিত হয়েছিল।